মিরপুরে জমে উঠেছে ঈদ আনন্দ ও বৈশাখী মেলা। ক্রেতাদের প্রচন্ড ভীড়

নিজস্ব প্রতিবেদক:

0 ৮,৬১৯

রাজধানীর মিরপুরে শেষ মূহুর্তে জমে উঠেছে মাসব্যাপী ঈদ আনন্দ ও বৈশাখী মেলা। ক্রেতা–বিক্রেতার উপস্হিতি দেখে মেলা আয়োজক কমিটির সদস্যরা অনেক খুশি। বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন আসছেন তাদের পছন্দের কেনাকাটা করার জন্য। তার পাশাপাশি বড়দের এবং বাচ্চাদের বিভিন্ন ধরনের বিনোদনমূলক আইটেম রয়েছে যা চোখের দেখারমত। মেলায় আগত লোকজনের নিরাপত্তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্হা করেছেন কমিটির সদস্যরা। তবে মেলায় এবার বেশি আকর্ষণ করছে কসমেটিক্স ও গৃহস্থলির দ্রব্যাদি। ওইসব পণ্য কিনতে প্রতিদিন ভীড় জমাচ্ছে নানা বয়সী নারী-পুরুষ। রাজধানীর মিরপুর ২ নম্বরের ন্যাশনাল বাংলা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠে গত ১৪ এপ্রিল মাসব্যাপী তাঁত বস্ত্র ও হস্ত কুটির শিল্প মেলার উদ্বোধন করা হয়। মেলার আয়োজন করে বেনারশী মসলিনও জামদানি সোসাইটি।
শনিবার বিকেলে সরেজমিনে মেলায় গিয়ে দেখা যায় যুবক-যুবতীসহ নারীদের প্রচন্ড ভীড়। তারা পছন্দের কসমেটিক্স ও ঘর সাজাতে গৃহস্থলির জিনিসপত্র কিনছেন। শিশুদের স্লিপার, ম্যাজিক নৌকা,ট্রেন ,ট্রয়ট্রেন ,চড়কি,নাগোর দেলায়, ভূতের বাড়ীসহ নানা ধরনের বিনোদন নিচ্ছে শিশুরা। কসমেটিক্স দোকানের কয়েকজন ক্রেতা জানান, মেলায় আসোলে ঘুরতে এসেছিলেন। কিন্তু আসার পর অনেক কসমেটিক্স ও বিভিন্ন প্রকারের অলংকার পছন্দ হওয়ায় সেগুলো কিনলাম।
মেলার দর্শনার্থী সাদিয়া আক্তার জানায়, মেলা বেশ ভাল লেগেছে। বিশেষ করে মেলার গেইট ও ফুয়ারা বেশী সুন্দর। কয়েকজন নারী জানান, সাধারণত পরিকল্পনা করে ঘর সাঝাতে দ্রব্যাদি কেনা হয় না। কোন মেলায় গেলে এসব জিনিপত্র কেনা হয়। তাই সেই উদ্দেশ্যে মেলায় আসা হয়েছে। তবে মেলায় আসা অনেক জিনিসি-পত্রই তাদের পছন্দ হয়েছে।
বিক্রেতারা বলেন, মেলায় ক্রেতার সংখ্যা সন্তোষজনক। বিশেষ করে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ক্রেতার সমাগম ঘটছে। তবে জিনিপত্রের দাম সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকায় বেচা-বিক্রি বেশ ভাল হচ্ছে।
মেলা আয়োজক কমিটির সভাপতি মঈন খান বাবুল জানান, গত ১৩ এপ্রিল মেলাটি শুরু হয়। মেলা শুরু থেকেই আমরা মেলায় আগত দর্শনার্থীদের জন্য সার্বিক ভাবে নিরাপত্তার ব্যবস্হা করা হয়েছে। এদিকে ৩০ তারিখ থেকে স্কুল খোলা হচ্ছে। স্কুলের শিক্ষার্থীদের যেন অসুবিধা না হয় এজন্য মেলার সময়সীমা সীমিত করা হয়েছে। স্কুল চলাকালীন সময় প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত মেলা চলবে। আসছে ১২ মে মেলা শেষ হবে বলেও জানান তিনি।

- Advertisement -

Facebook Comments

Leave A Reply

Your email address will not be published.